বুলবুল মোকাবিলায় প্রস্তুত প্রশাসন, সতর্কবার্তা দিলেন সাংসদ দেব-মিমি

বুলবুল মোকাবিলায় প্রস্তুত প্রশাসন, সতর্কবার্তা দিলেন সাংসদ দেব-মিমি

আশঙ্কাই সত্যি হল। স্থলভাগে ঢুকে পড়ল অতি ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। শুক্রবার রাত থেকেই দক্ষিণবঙ্গের সবক’টি জেলায় শুরু হয়েছে বৃষ্টি। শনিবার সকালেও ছবিটা কার্যত একই। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে বৃষ্টির দাপট। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, শনিবার সন্ধের মধ্যেই আছড়ে পড়বে বুলবুল। তাই আগেভাগেই দিঘা-সহ উপকুলবর্তী এলাকার বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে প্রশাসনের তরফে। এছাড়াও যে কোনও দুর্ঘটনা এড়াতে সর্তক রয়েছে প্রশাসন। নবান্নে খোলা হয়েছে কন্ট্রোলরুম। শনিবার সন্ধের পর থেকেই কন্ট্রোলরুমে থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী।

প্রথম থেকে বুলবুল মোকাবিলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছে প্রশাসন। উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে বাড়তি সতর্কতা জারি করা হয়েছে। মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যাওয়ার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পর্যটকদের সমুদ্রে যেতেও নিষেধ করা হয়েছে। উপকূলবর্তী এলাকার নিকটে দক্ষিণ ২৪ পরগণা। সেখানেও য়ে বেশরকম প্রভাব পড়বে, তা বলাই বাহুল্য। কলকাতা এবং রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকাগুলিতে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে তুমুল বৃষ্টি। যে কারণে সোনারপুর, রাজপুর পুরসভার কর্মীদের ছুটি বাতিল হয়ে গিয়েছে। তাই সাংসদ হিসেবে তৎপর মিমি চক্রবর্তীও। টুইটারে কন্ট্রোল রুমের নম্বরে শেয়ার করে সংসদীয় এলাকার মানুষদেরকে আবেদন জানিয়েছেন, বিপদে পড়লেই যেন ১৮০০৩৪৫৫২০২ নম্বরে যোগাযোগ করা হয়।

ঘুর্নিঝড় বুলবুলের প্রভাব পড়ার কথা দক্ষিন চব্বিশ পরগনায়৷ এইকারণে রাজপুর-সোনারপুর পৌরসভার সমস্ত কর্মীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। আজ থেকেই টানা খোলা থাকবে অফিস। খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। কেউ কোনো বিপদে পড়লে ছবিতে দেওয়া ১৮০০৩৪৫৫২০২ এই ট্রোল ফ্রি নাম্বারে ফোন করতে পারবেন।

কড়া সতর্কতা জারি হয়েছে মেদিনীপুরেও। ঘাটাল এমনিতেই বন্যাপ্রবণ এলাকা। তাই বুলবুল মোকাবিলাতে তৎপর তৃণমূল সাংসদ দীপক অধিকারী তথা দেব। উদ্বেগ প্রকাশ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছেন, “পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। যে কোনও সমস্যা ও কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হলে সরাসরি যোগাযোগ করুন নিম্নলিখিত জেলার কন্ট্রোল রুমের হেল্প লাইন নম্বরে এবং সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলির নম্বরেগুলিতে। এছাড়াও যে কোনও অসুবিধে হলে জেলাপরিষদেও যোগাযোগ করতে পারেন। আগামী শনিবার ও রবিবার জেলাপরিষদও খোলা থাকছে,” জানালেন দেব।

আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, ক্রমশ উত্তর-পশ্চিম দিকে এগোচ্ছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। তবে ওড়িশার কাছাকাছি পৌঁছে উত্তর-পূর্ব দিকে ঘুরে যাবে এটি। তারপর উপকূল সংলগ্ন এলাকা ধরে এগোবে বুলবুল। শনিবার রাতে সাগরদ্বীপ ও বাংলাদেশের মধ্যে খেপুপাড়ার মধ্যে দিয়ে প্রবেশ করবে এই ঘূর্ণিঝড়। যার গতিবেগ ঘণ্টায় ১১০ কিলোমিটার থেকে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে। এমনকী, সেই গতিবেগ ঘণ্টায় ১৩৫ কিলোমিটার হওয়াও আশ্চর্যের নয়।

CATEGORIES
Share This

COMMENTS

Wordpress (0)
Disqus (0 )