৫ ডিসেম্বর জাতীয় প্রতিবন্ধী কমপ্লেক্স সুবর্ণ ভবনের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী : সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

৫ ডিসেম্বর জাতীয় প্রতিবন্ধী কমপ্লেক্স সুবর্ণ ভবনের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী : সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ৫ ডিসেম্বর রাজধানীর মিরপুরের জাতীয় প্রতিবন্ধী চত্বরে নবনির্মিত জাতীয় প্রতিবন্ধী কমপ্লেক্স ‘সুবর্ণ ভবন’ উদ্বোধন করবেন বলে জানিয়েছেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি।
তিনি আজ দুপুরে সচিবালয়ের পিআইডি ভবনের কনফারেন্স কক্ষে জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান।
নুরুজ্জামান আহমেদ বলেন, সুবর্ণ ভবনে ৬শ’ প্রতিবন্ধী ছেলে-মেয়ের লেখা-পড়া ও থাকার ব্যবস্থা থাকবে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের শিক্ষা, চিকিৎসা, প্রশিক্ষণ, পুনর্বাসন ও আবাসিক সুবিধা দেয়ার লক্ষ্যে একশ’ কোটি টাকা ব্যয়ে এই বহুমুখী ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।’
এ সময় সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. ইসমাইল হোসেন ও প্রধান তথ্য কর্মকর্তা সুরথ কুমার সরকার উপস্থিত ছিলেন।
মন্ত্রী বলেন, প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নের ধারায় সম্পৃক্ত করতে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারই ১৯৯৯ সালে জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করে। এ ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার পর থেকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের ক্যাম্পাসে ২০১০ সালের ২ এপ্রিল ‘ অটিজম রিসোর্স সেন্টার ’র উদ্বোধন করেন। এর পাশাপাশি সেখানে একটি করে প্রতিবন্ধী কর্মজীবী পুরুষ ও মহিলা হোস্টেল, প্রতিবন্ধী শিশু নিবাস এবং অটিস্টিক স্কুলও চালু হয়েছে।
মন্ত্রী বলেন, এছাড়াও অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন শিশুদের অভিভাবকদের শিশুর প্রাত্যহিক লালন-পালনের প্রশিক্ষণ দেয়াসহ নানা রকম সেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
নুরুজ্জামান বলেন, দেশের প্রতিবন্ধী ও অটিজম বৈশিষ্ট্য সম্পন্ন ব্যক্তিদের ওয়ানস্টপ সার্ভিস দেয়ার জন্য দেশের সকল জেলায় ও ৩৯টি উপজেলায় ১০৩ টি প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্র চালু করা হয়েছে।
তিনি বলেন, দেশের প্রত্যন্ত এলাকার প্রতিবন্ধী জনগোষ্টীর দোড়গড়ায় থেরাপিউটিক সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য ২০১৫ সাল থেকে ৩২ টি ভ্রাম্যমান মোবাইল রিহ্যাবিলিটেশন থেরাপী ভ্যানের কার্যক্রম চলছে।
এ বিষয়ে তিনি বলেন, এ সকল কেন্দ্র থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে সাত লাখ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে বিনামূল্যে থেরাপিউটিক সেবাসহ অন্যান্য সেবা প্রদান করা হয়েছে।
প্রতিবন্ধী শিশুদের শিক্ষার ক্ষেত্রে নেয়া সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন থেকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে ৪৫ হাজার ৫৩৪টি সহায়ক উপকরণ বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। এসকল কেন্দ্রের সঙ্গে একটি করে অটিজম কর্ণার চালু করা হয়েছে।
তিনি বলেন, ইতোপূর্বে দেশে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সঠিক পরিসংখ্যান না থাকায় সরকার সমাজসেবা অধিদফতরের মাধ্যমে ‘ প্রতিবন্ধীতা সনাক্তকরণ জরিপ প্রকল্প ’ চালু করেছে।গত নভেম্বর পর্যন্ত দেশে মোট প্রতিবন্ধীর সংখ্যা ১৭ লাখ। তাদের সকলকে প্রতিবন্ধী ভাতার আওতায় আনা হয়েছে।
প্রতিবন্ধী ভাতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমানে ১০ লাখ প্রতিবন্ধীর জন্য বরাদ্ধকৃত ভাতার পরিমান হলো ৮শ’৪০ কোটি টাকা। ২০০৮-’৯ অর্থবছরের চেয়ে ভাতাভোগীর এ সংখ্যা ৫ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।

CATEGORIES
Share This

COMMENTS

Wordpress (0)
Disqus (0 )